উচ্চমাধ্যমিক টেস্টে ফেল করায় আত্মঘাতী ছাত্রী

উচ্চমাধ্যমিকের টেস্ট পরীক্ষায় পাস করতে পারেনি। সেজন্য ছাত্রীর অভিভাবককে ডেকে পাঠিয়েছিল স্কুল। বাড়িতে এসে মায়ের বকুনি খাওয়ার ভয়ে ছাত্রী মিথ্যা কথা বলে। জানায় যে সে পাস করেছে, মায়ের কাছ থেকে উচ্চমাধ্যমিকের ফর্ম ফিলাপের জন্য টাকাও নেয়। কিন্তু, তারপর মা কর্মস্থলে বেরিয়ে যেতেই গলায় ফাঁস দিয়ে আত্মঘাতী হল দ্বাদশের পড়ুয়া। অফিস থেকে ফিরে ঝুলন্ত অবস্থায় মেয়েকে দেখতে পান মহিলা।

তাঁর চিৎকারে ঘটনাস্থলে ছুটে আসেন প্রতিবেশীরা। খবর দেওয়া হয় পুলিশে। পুলিশ এসে দেহটি উদ্ধার করে ময়নাতদন্তে পাঠায়। শনিবার মর্মান্তিক ঘটনাটি ঘটেছে নরেন্দ্রপুর থানার গড়িয়ায়। উচ্চমাধ্যমিক পরীক্ষার্থীর আত্মহত্যার ঘটনায় এলাকায় ব্যাপক চাঞ্চল্য ছড়িয়ে পড়েছে। মৃত ছাত্রী স্নেহা মুণ্ডা (১৭) যাদবপুর বিদ্যাপীঠের কলাবিভাগের ছাত্রী ছিল। মেয়েকে হারিয়ে বাকরুদ্ধ মা। স্নেহার বাবা আগেই মারা গিয়েছেন। বাড়িতেমায়ের সঙ্গে থাকত দুই বোন। পরীক্ষায় অকৃতকার্য হওয়ার কারণেই ওই পড়ুয়া চরম সিদ্ধান্ত নিয়েছে বলে প্রাথমিকভাবে মনে করছে পুলিশ।

READ MORE ১৩২,০০০ ফোনের সংযোগ ব্লক করেছে সরকার, প্রতারণার কল এলে রিপোর্ট করুন এইভাবে

পরিবার সূত্রে জানা গিয়েছে, বৃহস্পতিবার স্কুলে টেস্ট পরীক্ষার রেজাল্ট বের হয়। স্নেহা বাড়িতে জানায় সে পাস করেছে। রেলে কর্মরত তার মা তাকে রেজাল্টের ছবি তুলে আনতে বলেন। উচ্চমাধ্যমিকের ফর্ম ফিলাপের জন্য মায়ের থেকে টাকাও নেয়। বিরিয়ানি খেতে ভালবাসত স্নেহা। ফর্ম ফিলাপের ওই টাকা দিয়ে সে বিরিয়ানি কিনে আনে। মা কাজে চলে যাওয়ার পর মায়ের সঙ্গে ফোনেও কথা হয় স্নেহার। তার পরই সে গলায় ওড়না জড়িয়ে আত্মঘাতী হয়েছে বলে অনুমান। কাজ সেরে বাড়িতে ঢোকার সময় মা দেখেন, মেয়ের ঘরের দরজা খোলা। ঘরে ঢুকে দেখেন এই দৃশ্য। প্রতিবেশীদের মারফত খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে পৌঁছয় নরেন্দ্রপুর থানার পুলিশ। স্নেহার মৃত্যুর খবর ছড়িয়ে পড়তেই তার স্কুলেও নেমে এসেছে শোকের ছায়া।

যাদবপুর বিদ্যাপীঠের প্রধান শিক্ষক পার্থপ্রতিম বৈদ্য জানান, “খুবই মর্মান্তিক ও দুঃখজনক ঘটনা। বিশ্বাস করতে পারছি না। এবছর স্কুলের ১৪ জন উচ্চমাধ্যমিক পড়ুয়া টেস্টে খুবই খারাপ ফল করেছে। অনেকেই ৫ বিষয়ে ন্যূনতম পাস নম্বরও তুলতে পারেনি। তাই অভিভাবকদের সঙ্গে কথা বলার জন্য তাদের ডাকা হয়েছিল। ১৩ জন অভিভাবক দেখা করেন। তাদের প্রত্যেককেই কৃতকার্য করে দেওয়া হয়েছে। শুধু ওই ছাত্রীর অভিভাবক আসেননি। এখন জানতে পারছি ছাত্রী অভিভাবককে বলেইনি যে সে অকৃতকার্য হয়েছে। মৃত ছাত্রীর এক আত্মীয় বলেন, “খুব ভালো মেয়ে ছিল। উচ্চমাধ্যমিকের টেস্ট পরীক্ষায় পাস করতে পারেনি, এটা জানতাম না। কারণ স্নেহা জানিয়েছিল সে পাস করেছে। মা বাড়িতে না থাকার সুযোগেই এমন
মর্মান্তিক কাণ্ড ঘটিয়েছে।”

Leave a Comment

Karmasangsthan News is a West Bengal lading Bengali Online News Website, Which provide all the Job news, Educational news, Trending News, Entertainment And Others, All the post write in local language i.e; bengali, so the all candidates can read carefully.

Site Links

Karmasangsthan.Live

Employment

Educational

Upcoming