৫ মাস বাদেও সাহারার টাকা ফেরত পাননি বিনিয়োগকারীরা

পঁয়তাল্লিশ দিনের মধ্যে সাহারা বিনিয়োগকারীদের ব্যাঙ্ক অ্যাকাউন্টে প্রাথমিক ভাবে দশ হাজার টাকা করে ঢুকবে। কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহের ঘোষণার ১৫০ দিন পার হয়ে গেলেও কোন বিনিয়োগকারীর অ্যাকাউন্টে টাকা ঢোকেনি। ত্রিপুরা সহ দেশের লাখ লাখ পরিবার বেশি লাভের আশায় বিনিয়োগ করেছিলেন সাহারা স্কিমে। কিন্তু বিনিয়োগ করা টাকা বছরের পর বছর আটকে রয়েছে। বিনিয়োগকারীদের অনেকেই ওই টাকার আশা কার্যত ছেড়ে দিয়েছিলেন। কিন্তু দেশের স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহ চলতি বছরের আঠারো জুলাই একটি পোর্টাল লঞ্চ করার অনুষ্ঠানে বলেছিলেন সাহারার টাকা পাওয়া যাবে। সাহারার দশ কোটি বিনিয়োগকারী সুযোগ পাবে। তবে প্রাথমিকভাবে প্রায় চার কোটি বিনিয়োগকারী উপকৃত হবেন।

সাহারা রিফান্ড পোর্টালের মাধ্যমে বিনিয়োগকারীরা স্বচ্ছভাবে পাঁচ হাজার কোটি টাকা ফেরত পাবেন। দেশের স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহ আরও জানিয়েছিলেন, মোদি সরকার বিনিয়োগকারীদের স্বার্থে রিফান্ড পোর্টালের মাধ্যমে এমন পদক্ষেপ নিয়েছে। স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী শাহ আরও জানিয়েছিলেন, যারা বিনিয়োগ করেছে তাদের টাকা ফেরত পাওয়া থেকে কেউ আটকাতে পারবে না। বিনিয়োগকারীরা পোর্টালে আবেদন করার পঁয়তাল্লিশ দিনের মধ্যে তাদের অর্থ ফেরত পাবেন। যেসব বিনিয়োগকারীদের বিনিয়োগের মেয়াদ শেষ হয়েছে তাঁরাই কেবলমাত্র টাকা ফেরত পাচ্ছেন। বিনিয়োগকারীদের এই পোর্টালে তাঁদের নাম রেজিস্ট্রেশন করতে হবে। এই সময়ই নানা নথিও জমা দিতে হবে। এই নথি ত্রিশ দিনের মধ্যে সাহারা গ্রুপের কমিটির তরফে যাচাই করা হবে। এরপর অনলাইনে ক্লেইমের পনেরো দিনের মধ্যে বিনিয়োগকারীদের এসএমএসের মাধ্যমে জানানো হবে। তারপরে বিনিয়োগকারীদের অ্যাকাউন্টে টাকা ঢুকবে। বিনিয়োগকারীরা তাঁদের কষ্টার্জিত টাকা পেতে সক্ষম হবেন। দেশের স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী প্রতিশ্রুতি দিয়েছিলেন আবেদনের মাত্র পঁয়তাল্লিশ দিনের মধ্যে টাকা অ্যাকাউন্টে পেয়ে যাবেন বিনিয়োগকারীরা।

READ MORE ৫ ডিসেম্বর শুরু কলকাতা চলচ্চিত্র উৎসব

কিন্তু প্রতিশ্রুতি দেওয়ার ১৫০ দিন পার হলেও বিনিয়োগকারীরা কেউই টাকা পাননি বরং টাকা পাওয়ার জন্য বিনিয়োগকারীরা অন লাইনে সুযোগ নিতে গিয়ে আরও কিছু খরচ করেছেন। পোর্টাল লঞ্চ করার অনুষ্ঠানে দেশের স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহ প্রতিশ্রুতি দিয়েছিলেন, প্রাথমিক ভাবে প্রায় চার কোটি বিনিয়োগকারী উপকৃত হবে। উল্লেখ্য, ২০০৯ সাল থেকেই সাহারার বিরুদ্ধে উঠতে থাকে একাধিক অনিয়মের অভিযোগ। শুরু হয় তদন্ত। ২০১৪ সালে সাহারার মালিক সুব্রত রায়ের ঠাঁই হয় তিহার জেলে। এদিকে ততদিনে আটকে গিয়েছে সাহারায় বিনিয়োগকারীদের কোটি কোটি টাকা। এবার সেই টাকাই ফেরানোর উদ্যোগ নিয়েছে কেন্দ্রীয় সরকার। এজন্য নাকি কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীর হাত দিয়ে লঞ্চ হয়েছে রিফান্ড পোর্টাল।

কিন্তু পঁয়তাল্লিশ দিন প্রতীক্ষার শেষ হয়ে ১৫০ দিন পার হওয়ার পরও কোন বিনিয়োগকারীর ব্যাঙ্ক অ্যাকাউন্টে টাকা ঢোকেনি। ইতিমধ্যে সাহারা কর্তা সুব্রত রায় প্রয়াত হয়েছেন। ফলে বিনিয়োগকারীদের আমানত আর পাওয়া যাবে কিনা কেউই নিশ্চিত নয়। তাছাড়া কেন্দ্রীয় সরকারের এ বিষয়ে আর কোন স্পষ্টীকরণ নেই। দেশের স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী সাহারা ইন্ডিয়ার পোর্টালের মাধ্যমে সাহারা ইন্ডিয়ার চারটি কো-অপারেটিভ সোসাইটির লগ্নিকারীরা তাঁদের টাকা ফেরতের জন্য আবেদন করতে পারবে বলে জানিয়েছিলেন। বৈধ নথি সমেত আবেদনের পঁয়তাল্লিশ দিনের মধ্যে বিনিয়োগকারীরা তাঁদের টাকা ফেরত পাবে তা জোরের সঙ্গে জানিয়েছিলেন তিনি। উল্লেখ্য, বিনিয়োগ করা অর্থ ফেরত পেতে আগেই সুপ্রিম কোর্টে মামলা করেছিল সমবায় মন্ত্রক। সেই আবেদনের ভিত্তিতেই পাঁচ হাজার কোটি টাকা বিনিয়োগকারীদের ফেরতের নির্দেশ দিয়েছিল দেশের শীর্ষ আদালত। তারপর থেকেই রিফান্ড পোর্টালের কাজ শুরু হয়ে গিয়েছিল। অবশেষে ‘সেন্ট্রাল রেজিস্ট্রার অব কো-অপারেটিভ সোসাইটিস (সিআরসিএস) সাহারা রিফান্ড পোর্টাল’-এর হাত ধরে টাকা ফেরতের প্রক্রিয়া যেভাবে শুরু হয়েছিল, সাহারা কর্তা সুব্রত রায় প্রয়াত হওয়ার পর তা বর্তমানে মুখথুবড়ে পড়েছে।

Leave a Comment

Karmasangsthan News is a West Bengal lading Bengali Online News Website, Which provide all the Job news, Educational news, Trending News, Entertainment And Others, All the post write in local language i.e; bengali, so the all candidates can read carefully.

Site Links

Karmasangsthan.Live

Employment

Educational

Upcoming