Explore News

জ্যোতিপ্রিয় মল্লিককে অনুপস্থিতিতে উন্নয়নমূলক কাজগুলির কী হবে, তা নিয়ে প্রশ্ন উঠছে এলাকায়

রেশন দুর্নীতি মামলায় গ্রেফতার করা হয়েছে প্রাক্তন খাদ্য মন্ত্রী তথা বর্তমান বনমন্ত্রী জ্যোতিপ্রিয় মল্লিককে। বিধায়কের গ্রেফতারির পর হাবড়া পুর এলাকায় একাধিক কাজের ভবিষ্যৎ নিয়ে সংশয় তৈরি হয়েছে ওই এলাকার বাসিন্দাদের মধ্যে।

পুরসভার সমস্ত কাজেই সক্রিয় ভূমিকা পালন করতেন বালু। যেকোন কাজের জন্য প্রয়োজনীয় নথি সংশ্লিষ্ট দফতরে জমা করা, দ্রুততার সাথে অর্থ অনুমোদন করানো সবাই তিনি খুব ভালো ভাবে করতে পারতেন। এই সব নিয়ে পুরসভার কর্তৃপক্ষকে কখনোই ভাবতে হয়নি।

হাবড়ার পুরপ্রধান তৃণমূলের নারায়ণ সাহা বলেন, “বিভিন্ন সরকারি দফতরের মন্ত্রী ও আধিকারিকদের সঙ্গে কথা বলে বালুদা (জ্যোতিপ্রিয়ের ডাক নাম) যে কোনও কাজ দ্রুত করিয়ে নিয়ে আসতেন। এখন তাঁর অনুপস্থিতিতে আমাদের বড় অসহায় লাগছে।”

তার অনুপস্থিতিতে উন্নয়ন মূলক কাজ অনেকটাই বিলম্ব হবে। পুরসভার অধীনে বৈদ্যুতিক চুল্লি তৈরির কাজও চলছে। ওই কাজের জন্য আনুমানিক খরচ ধরা হয়েছে ২ কোটি ৪৬ লক্ষ টাকা। প্রশাসনের কাছ থেকে বৈদ্যুতিক চুল্লির জন্য এখনও পর্যন্ত পাওয়া গিয়েছে ৩৭ লক্ষ ৫৯ হাজার টাকা। পুরসভার রাস্তা মেরামতির জন্য ও এক হাজার আলোর স্তম্ভ লাগানোর জন্য সংশ্লিষ্ট দফতরে কাগজ পত্র জমা দেওয়া আছে। প্রস্তাবিত কাজগুলির অগ্রগতি নিয়েই চিন্তিত পুর কর্তৃপক্ষ। হাবরা পুরসভায় পাম্পিং স্টেশন ও কাপড়ের হাট তৈরির কাজ একদম শেষ পর্যায়ে। এই বিষয়ে
নারায়ণ বাবু বলেন, “এই কাজগুলিও মুখ্যমন্ত্রীকে বলে বালুদাই হাবড়ার উন্নয়নের জন্য করিয়ে এনেছিলেন। এই কাজগুলি হয়তো শেষ হয়ে যাবে। কিন্তু প্রস্তাবিত প্রকল্পগুলি নিয়েই আমরা চিন্তায় পড়েছি।”

প্রাক্তন পুরপ্রধান নীলিমেশ দাস বলেন, “আমার সময়েও হাবড়া শহরে যা উন্নয়ন হয়েছিল, তার অনুমোদন, টাকা বরাদ্দের ক্ষেত্রে বালুদা বড় ভূমিকা নিয়েছিল। এখন তাঁর অনুপস্থিতিতে উন্নয়ন কাজে নিশ্চয়ই প্রতিবন্ধকতা তৈরি হবে।”

Read More ১৫০ টাকার কমে রিচার্জ প্ল্যান আনলো Airtel, মিলবে ১৫ টি OTT সাবস্ক্রিপশন

বিষয়টি নিয়ে বিরোধীদের মধ্যে সমালোচনার ঝড়ও ওঠে। হাবড়ার সিপিএম নেতা আশুতোষ রায়চৌধুরী বলেন, “এলাকার বিধায়ক হিসাবে কেউ বিধানসভা বা মন্ত্রিসভায় এলাকার উন্নয়নের জন্য প্রস্তাব দিতে পারেন, দাবি জানতে পারেন। কিন্তু পুর এলাকায় উন্নয়নের কাজ পরিচালনা করার জন্য পুরসভা আছে। পুরসভা একটি স্বশাসিত সংস্থা। তাদের কাজে বিধায়ক বা মন্ত্রী নিয়ন্ত্রণ করবেন কেন? এরা কি আইনকানুন মানবে না?”

বিজেপি নেতা বিপ্লব হালদার বলেন, “রাজ্য সরকারের সদিচ্ছা থাকলে উন্নয়ন হবে। বিধায়ক থাকাকালীন কেন্দ্রীয় সরকারের টাকাই উনি খরচ করতে পারেননি। রেল কারশেড, উড়ালপুল, যশোর রোড চওড়া করা—এ সব কাজে ব্যর্থ। তাই বিধায়ক থাকা না-থাকার মধ্যে কোনও পার্থক্য নেই। চোরের শাস্তি তো হবেই।”

You might also check these .....

Leave a Comment

Karmasangsthan News is a West Bengal lading Bengali Online News Website, Which provide all the Job news, Educational news, Trending News, Entertainment And Others, All the post write in local language i.e; bengali, so the all candidates can read carefully.

Site Links

Karmasangsthan.Live

Employment

Educational

Upcoming

india vs England Match Update Cofe with Karan Deepika confesses to having sex with other men in front of Ranbir Specifications of Nokia G42 5G Actress Anushka Sharma is pregnant again